Online EPIC: কীভাবে করবেন ভোটার কার্ড সংশোধন, দেখুন

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now

নিজস্ব প্রতিবেদন: বর্তমানে ভারতীয় নাগরিকদের সচিত্র পরিচয় পত্র (Voter Card) হিসেবে আধার কার্ড বিভিন্ন স্থানে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হলেও ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে যে কোনো ভারতীয়র নাগরিকত্বের একটি প্রমাণ হল ভোটার কার্ড (EPIC Card)। ভারতীয় নাগরিককে তার ভোটাধিকারের অধিকার প্রয়োগ করতে গেলে ১৮ বছর বয়সের পর ভোটার কার্ড (Online EPIC) তৈরি করতে হয়।

ভোট দেওয়ার পাশাপাশি আরও বিভিন্ন ধরনের সরকারি সুবিধা লাভ করতে বা পরিচয় পত্র হিসেবেও ভোটার কার্ডের গুরুত্ব অপরিসীম। অতি গুরুত্বপূর্ণ এই নথিটিতে যদি নাম, ঠিকানা বা জন্ম তারিখ ইত্যাদি সম্পর্কিত কোন ভুল থেকে থাকে সেক্ষেত্রে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

তবে বর্তমানে ঘরে বসে ভোটার কার্ডের এই সমস্ত ভুলগুলি সহজেই সংশোধন (Online EPIC Correction) করে নেওয়া সম্ভব। দেখে নিন এই ভুল সংশোধনের সহজ নিয়ম গুলি।

Online EPIC সংশোধনের স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি

১) প্রথমেই নির্বাচন কমিশনের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট “www.nvsp.in” এ যেতে হবে এবং রেজিস্টার অপশনে ক্লিক করতে হবে।

২) এর পর আপনার আধার নম্বর, নাম, জন্মতারিখ এবং মোবাইল নম্বর নির্দিষ্ট স্থানে সঠিক ভাবে প্রদান করতে হবে।

৩) এরপর একটি পাসওয়ার্ড তৈরি করে সেটি আবার প্রদান করতে হবে এবং রেজিস্টার এ ক্লিক করতে হবে।

এই পদ্ধতিগুলি অনুসরণ করা সম্পন্ন হলে আপনি ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারেন। এর জন্য যে যে পদ্ধতিগুলি অবলম্বন করতে হবে সেগুলি হল-

১) প্রথমেই “ভোটার আইডি” অপশনে ক্লিক করতে হবে।

২) “সংশোধন” বোতামে ক্লিক করতে হবে।

৩) ভোটার কার্ডের নাম ভুল থাকলে “নাম সংশোধন” বোতামে ক্লিক করতে হবে।

পড়ুনঃ  Swasthya Sathi : পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য স্বাস্থ্য কার্ড দিচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী, জানতে পড়ুন

৪) এরপর সঠিক ভাবে নিজের নাম, জন্মতারিখ, রাজ্য, নির্বাচনী এলাকা এবং বর্তমান ঠিকানা প্রদান করুন।

৫) এরপর “আপলোড করুন” বোতামে ক্লিক করুন এবং আপনার নামের প্রমাণপত্রের একটি স্ক্যান করা কপি আপলোড করুন।

৬)ডিক্লেয়ারেশন” পূরণ করুন এবং “সাবমিট” বোতামে ক্লিক করুন।

আপনার এই আবেদন যদি গৃহীত হয় তাহলে নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে আপনাকে এসএমএস এর মাধ্যমে জানানো হবে এবং আপনার নামটি সংশোধন করা হবে। সেক্ষেত্রে নাম সংশোধনের জন্য আপনার সঠিক নামের সমর্থনে কোনো একটি বিশেষ নথি যেমন পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, বা জন্ম নিবন্ধন ইত্যাদি এবং মাত্র ১০ টাকা ফি দিয়ে সহজেই এই কাজটি করে নিতে পারবেন।

Gupta Ajay

নমস্কার, আমি অজয় গুপ্ত। আমি একজন কনটেন্ট রাইটার। বিগত ৫ বছর ধরে টেক, ব্যবসা, অনলাইন ইনকাম, লাইফস্টাইল ইত্যাদি বিষয়ে লেখালিখি করছি। লেখা নিয়ে কোন মতামত থাকলে কমেন্টে জানাতে পারেন। Ajay Gupta Senior Content Writter

Leave a Comment

error: Content is protected !!